মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আর্জেন্টিনা চ্যাম্পিয়ন প্রধানমন্ত্রীর সাম্প্রতিক চীন সফর পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনের বক্তৃতার পূর্ণ বিবরণ প্রধানমন্ত্রী চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন ঢাকা-বেইজিং ২১টি দলিল সই এবং দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নত করতে ৭টি প্রকল্প ঘোষণা রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে চীনের প্রতি সহযোগিতার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রী বেইজিং পৌঁছেছেন, বুধবার রাষ্ট্রপতি শি জিংপিংয়ের সঙ্গে বৈঠক  সশস্ত্র বাহিনীকে বিশ্বমানের করে গড়ে তোলা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী গিমাডাঙ্গা টুঙ্গিপাড়া সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু কর্নারের উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর এমিলিয়ানো মার্টিনেজের বীরত্বে সেমিফাইনালে আর্জেন্টিনা যুক্তরাজ্যে সাধারণ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হচ্ছে ২০৩৫ সালের মধ্যে পরীক্ষামুলকভাবে হাইড্রোজেন জ্বালানি ব্যবহার সম্ভব হবে : প্রধানমন্ত্রী সরকারি কর্মচারিদের সম্পদের হিসাব দাখিলের নির্দেশ হাইকোর্টের ভারতের সাথে সমঝোতা স্মারকের সকল ধারা না পড়েই বিএনপি অপপ্রচার করছে : তথ্য প্রতিমন্ত্রী জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ-২০২৪ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে আস্থা তৈরি করবে: তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী সিনেমার চরিত্রের প্রয়োজনে মেদ ঝেরে ফেলেছেন অভিনেত্রী শাবনূর রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীনের সহায়তা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী পশুরহাটে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা রোধে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়েছে: কমান্ডার আরাফাত সিংহাসন হারিয়ে পাঁচে নেমে গেলেন সাকিব; শীর্ষে নবি প্রধানমন্ত্রীর প্রথম জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ  বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠকে দু’দেশের সম্পর্ক আগামীতে আরো দৃঢ় করার ব্যাপারে আশাবাদী বিজেপির বর্ষীয়ান নেতা এল কে আদভানির সঙ্গে শেখ হাসিনার সৌজন্য সাক্ষাৎ সেবা ও উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে লায়নদের সর্বাত্মক সহযোগিতা প্রদানের আহ্বান রাষ্ট্রপতির স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মাণের লক্ষ্য নিয়ে ৭ লাখ ৯৭ হাজার কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব মোদির শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আগামীকাল নয়াদিল্লি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মেক্সিকোর নব-নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ড. ক্লদিয়া শিনবাউম পারদোকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অভিনন্দন ঈদের ছুটির পর সরকারী অফিস সকাল ৯টা থেকে ৫টা পর্যন্ত : মন্ত্রিপরিষদ সচিব  জনগণের অর্থের সঠিক ব্যয় নিশ্চিত করতে সিএজি’কে রাষ্ট্রপতির নির্দেশ  যারা অগ্রযাত্রায় সহায়তা করে বাংলাদেশ তাদের সঙ্গেই কাজ করবে: প্রধানমন্ত্রী

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে দিশেহারা সাধারণ মানুষ

স্বাধীনতা২৪.কম
  • Update Date : বুধবার, ৪ আগস্ট, ২০২১

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে শহুরে মানুষদের অনেকেই এখন দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে চিড়েচ্যাপ্টা।

কফিল উদ্দিন থাকেন ঢাকার মিরপুরের রূপনগরে। এক সময় প্রথম শ্রেণির ঠিকাদার ছিলেন। কক্সবাজারের রামু উপজেলায় একটি সেতুর কাজ পেয়েছিলেন। কিন্তু নির্মাণের পরপরই সেতুটি ধসে পড়লে পুঁজি হারিয়ে তার তার স্বপ্নও ধসে পড়ে। এরপর গ্রামের বাড়ি লক্ষ্মীপুরে জায়গা-জমি বিক্রি করে সংসার পাতেন ঢাকায়। এখন তিনি বিভিন্ন আবাসন কোম্পানির তৈরি নতুন ফ্ল্যাটের অভ্যন্তরীণ ‘ফিনিশিংয়ের’ কাজ করে মোটামুটি চলেই যাচ্ছিল। কিন্তু মহামারীতে তাতে ঘটেছে ছন্দপতন। কফিল উদ্দিনের চার সন্তানের মধ্যে বড় ছেলে এবার এইচএসসি পাস করে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে চায়। মেজ ছেলে এবার এসএসসি পরীক্ষা দেবে। বাকি দুই সন্তান পড়ে চতুর্থ ও প্রথম শ্রেণিতে।

মহামারী নিয়ন্ত্রণের লকডাউনের কারণে কাজ না থাকায় আর্থিক সঙ্কটে পড়ে জমা কিছু টাকা দিয়েই অন্য অনেকের মতো দিন পার করছিলেন কফিল। কিন্তু নিত্যপণ্যের বাজার দর তাতেও ফেলেছে টান।

তিনি বলেন, “দেশ ও মানুষ বাঁচানোর জন্য সরকার লকডাউন দিয়েছে, এটা মেনে নিতে হবে। কিন্তু সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে, বাজারে প্রত্যেকটি জিনিসের দাম বেড়ে গেছে।

“এক বছর আগে যে সয়াবিন তেল প্রতি লিটার ১০৫ থেকে ১১০ টাকা ছিল, সেটা এখন প্রায় ১৫০ টাকা। গত বছর যে চাল ৫০ টাকা ছিল, সেটা এখন ৬৫ টাকা।”

সরকারি সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) তথ্য অনুযায়ী, মহামারী শুরুর পর গত এক বছরে মোটা ও সরু দুই ধরনের চালের দামই ১৫ শতাংশের মতো বেড়েছে। সয়াবিন তেলের দাম বেড়েছে ৪৮ শতাংশ। এছাড়া নিত্য পণ্যের মধ্যে রসুনের দাম ৬৬ শতাংশ, হলুদের দাম ৩১ শতাংশ, চিনির দাম ১৮ শতাংশ, মসুর ডালের দাম ১০ শতাংশ, আটার দাম ৭ শতাংশ বেড়েছে।

দ্রব্যমূল্যের চাপে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন বলে জানালেন রূপনগরেরেই এক বাড়ির দারোয়ান আলাল উদ্দিন। তার বেতন ৮ হাজার টাকা, এই টাকায় দিন চলে না বলে তার স্ত্রী গৃহকর্মীর কাজ নিয়েছিল। কিন্তু মহামারীর কারণে তার কাজ গেছে চলে। তার মেয়ে পোশাক কারখানায় কাজ করতেন, তিনিও হারিয়েছেন চাকরি।

আলাল বলেন, “চার হাজার টাকা ঘর ভাড়া দিয়ে বাকি টাকা দিয়ে কোনো রকমে ১৫ দিন পর্যন্ত চলা যায়। তাই এখন এক বেলা খাচ্ছি, আরেক বেলা না খেয়ে থাকছি।”

এমন পরিস্থিতিতে রূপনগরে চায়ের দোকান ফেলে পালিয়ে গেছেন হাতিয়া থেকে আসা আসগর আলী। তার প্রতিবেশী জাহিদ পাটোয়ারী বলেন, “মহল্লার চায়ের দোকানের ব্যবসার সময় হচ্ছে সন্ধ্যা বেলায়। লকডাউনে পাঁচটার পর দোকান বন্ধ রাখতে হয়। তাই সে ঠিকমতো ব্যবসা করতে না পেরে দেনায় পড়ে যায়। শেষ পর্যন্ত টিকতে না পেরে এলাকা থেকে চলে গেছে।” লকডাউনের মধ্যে বেড়ে গেছে নিত্যপণ্যের দাম; পরিবহন ব্যয় বেড়ে যাওয়ার অজুহাত দিচ্ছে বিক্রেতারা।

 

লকডাউনের মধ্যে নিম্ন আয়ের মানুষের মধ্যে তুলনামূলক ভালো থাকা রিকশাচালকরাও অসন্তুষ্ট দ্রব্যমূল্য নিয়ে। ২৮ বছর ধরে ঢাকায় রিকশা চালিয়ে আসা কাশেম মিয়া বলেন, লকডাউনের সময় তার আয় বেশি হচ্ছে। “কিন্তু গত বছর ২০০ টাকায় যে জিনিস কিনতাম, সেটা এখন ৩০০ টাকা লাগছে। রোজগার বেশি হলেও খরচ তো বাজারে চলে যাচ্ছে। মাস শেষে কিছুই থাকে না।”

পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য বলছে, গত জুন মাসে পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে দেশে সাধারণ মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৫ দশমিক ৬৪ শতাংশ। অর্থাৎ গত অর্থবছরের জুন মাসে যে পণ্য ১০০ টাকা দিয়ে পাওয়া যেত, সেটা এখন কিনতে গেলে প্রায় ১০৭ টাকা লাগছে।

 

কিন্তু নিত্যপণ্যের বাজার যে মানুষের নাভিঃশ্বাস ফেলছে, তা বোঝা যায়, টিসিবির ট্রাকের সামনে কম দামে পণ্য কিনতে মানুষের ভিড় দিন দিন বেড়ে যাওয়ার মধ্য দিয়ে। যে মধ্যবিত্তকে সাধারণত এই লাইনে দেখা যেত না, মহামারীকালে এখন তাদেরও দেখা যাচ্ছে। এই সময়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। সঙ্কটে থাকা পরিবারের কেউ আক্রান্ত হলে তারা পড়ে যাচ্ছে মহাসঙ্কটে। এই পরিস্থিতি নিয়ে অর্থনীতির গবেষক আহসান এইচ মনসুর বলেন, আসলে সকল সমস্যার ‘মূল কারণ’ হচ্ছে লকডাউন। মানুষ স্বাভাবিকভাবে চলা ফেরা করতে না পারলে তারা চলবে কীভাবে? তাই সরকারকে প্রথমে লকডাউন খুলে দিতে হবে।

“নিম্ন আয়ের মানুষের বেশিরভাগই রাস্তার পাশে বিভিন্ন রকমের দোকান বা ফেরি করে জীবন ধারণ করেন। লকডাউন দেওয়া হলে তাদের ব্যবসাই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। অনেকে দোকানের ভাড়া দিতে না পেরে দোকান ছেড়ে দিতে হচ্ছে। ফলে এই খাতের অনেকে একেবারে বিলীন হয়ে যাচ্ছে।”

এভাবে যারা সবকিছু হারিয়ে ফেলেছেন, তাদেরকে উঠে দাঁড়াতে সরকারি উদ্যোগে মূলধন জোগানোর ব্যবস্থা করা প্রয়োজন বলে মনে করেন  বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান পিআরআই’র নির্বাহী পরিচালক আহসান মনসুর।

“সরকার উদ্যোগ নিয়ে এসব নিম্ন আয়ের মানুষগুলোকে নিজের পেশায় ফিরিয়ে আনতে পারে। এক্ষেত্রে সরকার একটি প্রকল্প গ্রহণ করতে পারে।”

এছাড়া লকডাউন ও মহামারীতে শ্রমজীবী যেসব মানুষ ক্ষতির মুখে পড়েছে, তাদর তালিকা করে মাসিক ভাতার ব্যবস্থা করার সুপারিশও করেন তিনি।

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *